1. [email protected] : [email protected] :
  2. [email protected] : Majnu : Majnu
ডিসেম্বরে ৩ কোম্পানির আইপিও - Banglanama.com
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৪৮ পূর্বাহ্ন

ডিসেম্বরে ৩ কোম্পানির আইপিও

  • আপডেট সময়: মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর, ২০২১
  • ৩৬৭ বার দেখা হয়েছে

তিন কোম্পানি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে শেয়ারবাজার থেকে অর্থ উত্তোলনের জন্য আবেদনের তারিখ ঘোষণা করেছে। কোম্পানি ৩টি হলো- ইউনিয়ন ইন্সুরেন্স কোম্পানি, বিডি থাই ফুড এন্ড বেভারেজ এবং ইউনিয়ন ব্যাংক লিমিটেড। কোম্পানিগুলো সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

কোম্পানি ৩টির আইপিও আবেদেনর তারিখ ডিসেম্বর মাসে নির্ধারণ করা হয়েছে। শেয়ারবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমোদনের প্রেক্ষিতে কোম্পানি ৩টি আইপিও আবেদনের তারিখ নির্ধারণ করেছে।

এর মধ্যে ইউনিয়ন ইন্সুরেন্সের আবেদন ১৫-২২ ডিসেম্বর, বিডি থাই ফুড এন্ড বেভারেজের আবেদন ২৩-২৯ ডিসেম্বর এবং ইউনিয়ন ব্যাংকের আবেদন ২৬-৩০ ডিসেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে।

ইউনিয়ন ইন্সুরেন্স কোম্পানি:

আইপিওর মাধ্যমে কোম্পানিটি শেয়ারবাজার থেকে ১৯ কোটি ৩৬ টাকা উত্তোলন করবে। ফিক্সড প্রাইস পদ্ধতির মাধ্যমে কোম্পানিটি অভিহিত মূল্য তথা ১০ টাকা মূল্যে ১ কোটি ৯৩ লাখ ৬০ হাজার শেয়ার ইস্যু করবে।

উত্তোলিত অর্থ মেয়াদি আমানত (Fixed Deposit), শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ, ফ্লোর কেনা ও আইপিওর ব্যয় বাবদ ব্যবহার করবে।

সর্বশেষ আর্থিক প্রতিবেদন অনুসারে, কোম্পানিটির শেয়ার প্রতি আয় বা ইপিএস ৯৩ পয়সা।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০ তারিখে কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি নিট সম্পদ মূল্য (এনএভি) ছিল ১৬ টাকা ২ পয়সা (সম্পদ পুনঃমূল্যায়নসহ)।

ব্যাংকটির ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছে সোনার বাংলা ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড।

বিডি থাই ফুড এন্ড বেভারেজ:

কোম্পানিটিকে ১০ টাকা ইস্যু মূল্যের ১ কোটি ৫০ লাখ সাধারণ শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ১৫ কোটি টাকা উত্তোলনের অনুমোদন দেয়া হয়।

উত্তোলিত অর্থে যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জাম কেনা, ভবন নির্মাণ, ভূমি উন্নয়ন ও আইপিও প্রক্রিয়ার খরচ খাতে ব্যয় করা হবে।

৩০ জুন সমাপ্ত ২০২০ হিসাব বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুসারে পুনর্মূল্যায়ন ছাড়া কোম্পানিটির নিট সম্পদমূল্য (এনএভি) ১২ টাকা ৮২ পয়সা। আর পুনর্মূল্যায়নসহ এনএভি ১৪ টাকা ২৩ পয়সা।

গত পাঁচ বছরের ভারিত গড় হারে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) ৬৩ পয়সা। কোম্পানিটির বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ৬৬ কোটি ৫০ লাখ টাকা।

কোম্পানিটির শেয়ারধারীদের স্টক এক্সচেঞ্জে শেয়ার লেনদেন শুরুর দিন থেকে পরবর্তী তিন বছর পর্যন্ত লকইন আরোপ করা হয়েছে।

এছাড়া কোম্পানিটির ইপিএস ১ টাকা বা এর বেশি না হওয়া পর্যন্ত উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা কোনো প্রকার লভ্যাংশ নিতে পারবেন না। শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির আগে কোম্পানিটি কোনো ডিভিডেন্ড ঘোষণা, অনুমোদন বা বিতরণ করতে পারবে না।

বিডি থাই ফুড অ্যান্ড বেভারেজের কর্মীদের অনুকূলে ১৫ শতাংশ শেয়ার ইস্যু করতে পারবে। তবে এক্ষেত্রে এ শেয়ারের ওপর দুই বছরের লকইন থাকবে।

কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে বিএলআই ক্যাপিটাল লিমিটেড ও ইউনিক্যাপ ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

ইউনিয়ন ব্যাংক:

কোম্পানিটি শেয়ারবাজারে ৪২ কোটি ৮০ লাখ সাধারণ শেয়ার ইস্যুর মাধ্যমে ৪২৮ কোটি টাকা উত্তোলন করবে। প্রতিটি শেয়ারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১০ টাকা।

শেয়ারবাজার থেকে ব্যাংকটি অর্থ উত্তোলন করে এসএমই ও প্রজেক্ট অর্থায়ন, সরকারি সিকিউরিটিজ ক্রয়, শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ এবং আইপিও খরচ খাতে ব্যয় করবে।

কোম্পানিটির ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত অর্থবছরের নিরীক্ষিত আর্থিক বিবরণী অনুযায়ী পুন:মূল্যায়ন ছাড়া নেট অ্যাসেটভ্যালু হয়েছে ১৬.৩৮ টাকা (কোম্পানিটি কোনো সম্পদ পুন:মূল্যায়ন করেনি) এবং শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হগয়েছে ১.৭৭ টাকা।

বিগত ৫ বছরের ভারিত গড় হারে শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ১.৮২ টাকা।

ব্যাংকটি ২০২১ সালের মধ্যে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজে ২০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে।

এছাড়াও শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির পূর্বে ব্যাংকটি কোনো প্রকার ডিভিডেন্ড ঘোষণা, অনুমোদন বা বিতরণ করতে পারবে না।

আইপিওতে কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে নিয়োজিত রয়েছে যথাক্রমে প্রাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্ট এবং ব্র্যাক ইপিএল ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড।

Facebook Comments Box

শেয়ার দিয়ে সবাইকে দেখার সুযোগ করে দিন...

এই বিভাগের আরো সংবাদ দেখুন