02:11 PM, 21 Oct 2019
লেখক প্রকাশক পাঠকের মেলা

খন্দকার সোহেল
সকাল ৯টায় শুরু হয়ে ফ্রাঙ্কফুর্ট বইমেলা শেষ হয় সন্ধ্যা ৬টা

কিন্তু গত দু'দিন মেলা শেষ হবার পর আরও দুই ঘণ্টা মেলা প্রাঙ্গনে ঘোরাফেরা করলাম। না, আমি একা নই। আমার মতো অনেকেই ঘোরাফেরা করেছে মেলা প্রাঙ্গনে। অনেক স্টলে দেখলাম, হাই ভলিউমে মিউজিক বাজিয়ে স্টল কর্মী কিংবা প্রকাশক কিংবা লেখক আনন্দ করছে। নৃত্যভঙ্গিমাও চোখে পড়ল কারও কারও। বুঝলাম, সারাদিনের অক্লান্ত পরিশ্রম শেষে তারা আনন্দ করছে। উপভোগ করছে সময়টা। চারদিকে তাকালাম। না, কোনো পুলিশের টিকিটিও নজরে পড়ল না।

আমরা যারা অমর একুশে বইমেলায় অংশগ্রহণ করি। বইমেলা শেষ হবার পরপরই পুরো বইমেলাজুড়ে তাকালে মনে হয় পুলিশি মেলা ! প্রতিটি গলিতে পুলিশ মাইক হাতে, বাঁশি বাজিয়ে, মাঝেমধ্যে মনে হয় কেউ কেউ পারলে গলাধাক্কা দিয়ে লেখক কিংবা প্রকাশক কিংবা স্টলকর্মীকে মেলাপ্রাঙ্গন থেকে বের করে দেয়!!!

তখন মনে হয় এটা লেখক-প্রকাশক-পাঠকের মেলা নয়। আমরা অংশ নিই পুলিশি মেলায়!

ব্যাপারটি নিয়ে বোধহয় আমরা ভাবতে পারি।